রাজশাহী, মঙ্গলবার ২০ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ৮ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

শিরোনাম
◈ রাজশাহীতে অজ্ঞাত ভাইরাসে দুই শিশুর মৃত্যু : আইইডিসিআরের পরিদর্শন, বাবা-মাকে ছাড়পত্র ◈ দিঘলিয়া থানায় ওপেন হাউজ ডে অনুষ্ঠিত ◈ হাতীবান্ধায় পরপর তিন দিনে পাশাপাশি তিনটি খড়ের গাদায় আগুন ◈ সিরাজগঞ্জে বিএসটিআইয়ের অভিযানে ফ্লাওয়ার মিলকে মামলা ও জরিমানা ◈ ট্রাকের পিছনের চাকায় পৃষ্ঠ হয়ে মোটরসাইকেল আরোহীর মৃত্যু ◈ তানোরে পুকুর খননের মাটিতে পাকা রাস্তা নষ্ট এলাকায় উওেজনা ◈ রাজশাহীর ডিবি পুলিশ কর্তৃক ২০০ গ্রাম হেরোইন-সহ গ্রেফতার: ৩ ◈ নওগাঁর ডলফিন এনজিও‘র মালিক আব্দুর রাজ্জাকসহ ০৬ জন কে যৌথ অভিযানে আটক ◈ আল-কোরআন হাফেজদের ব্যতিক্রমী বিদায় সংবর্ধনা ◈ হাতে ভাজা দেশি মুড়ি গ্রামীন জনপদ থেকে বিলুপ্তির পথে

রাজশাহীসহ সারা দেশে করোনার ‘অশুভ ইঙ্গিত’

করোনা মোকাবিলায় কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণ জরুরী বলে মনে করেন সচেতন নাগরিকগণ

প্রকাশিত : 04:07 PM, 19 January 2022 Wednesday

Private: মো.মাইনুর রহমান

রাজশাহীতে নতুন করে করোনা সংক্রমণ এক দিনেই লাফিয়ে তিনগুণের বেশি হয়েছে। গত রোববার এখানে নমুনা পরীক্ষার বিপরীতে ৩৩ দশমিক ১৯ শতাংশ নমুনায় করোনা পজেটিভ পাওয়া গেছে। আগের দিন শনিবার এই হার ছিল ৯ দশমিক ৬৫ শতাংশ। এর মধ্যেই রাজশাহীতে জনপ্রতিনিধি, প্রশাসনের একাধিক কর্তাব্যক্তি করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। গতকালও সংক্রমণের হার ১৪ ঘরে থাকলেও বুধবার ২০ শতাংশ ছাড়িয়ে যায়।

জাতীয়ভাবেও করোনা সংক্রমণ ঊর্ধ্বমুখী। ২৪ ঘণ্টায় দেশে ছয় হাজার ৬৭৬ জন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে। শনাক্তের হার ২০ দশমিক ৮৮ শতাংশ। আগের ২৪ ঘণ্টায় করোনা শনাক্ত হয়েছিল পাঁচ হাজার ২২২ জনের দেহে। এই হার ১৭ দশমিক ৮২ শতাংশ। অর্থাৎ রাজশাহীর মত সারাদেশেই করোনা সংক্রমণ বাড়ছে লাফ দিয়ে।
সংক্রমণের ধারা নিয়ে সতর্কবাণী উচ্চারণ করেছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী। ওমিক্রনসহ করোনাভাইরাসের আক্রমণ যে হারে বাড়ছে তাতে আগামী এক-দেড় মাসের মধ্যে দেশের হাসপাতালগুলোতে রোগী রাখার জায়গা থাকবে না বলেও জানিয়েছেন তিনি। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালকও সংক্রমণের ঊর্ধ্বমুখী ধারাকে ‘অশুভ ইঙ্গিত’ বলে উল্লেখ করেছেন। তিনি আরও জানিয়েছেন, দেশে ওমিক্রনের সংক্রমণ আগের তুলনায় বাড়লেও এখনও ডেল্টায় আক্রান্ত রোগীর সংখ্যাই বেশি। এতে আক্রান্ত ৮০ শতাংশ রোগী । তবে ঢাকায় ওমিক্রন আক্রান্তের সংখ্যা বেশি। এর আগেও করোনা রোগীর সংখ্যায় রাজধানী ঢাকা এগিয়েই ছিল। সেখান থেকেই ছড়িয়ে পড়েছিল সারা দেশে। অন্যদিকে সীমান্ত পথেও দেশের বাইরে থেকে সংক্রমণ ছড়ানোর ঘটনা সবার জানা।

এ অবস্থায় মাস্ক পরাসহ স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার ওপর জোর দেয়াই স্বাভাবিক। সেই সাথে একটি তথ্য বিবেচনার দাবি রাখে। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্য মতে করোনায় গত এক মাসে যারা মারা গেছেন, তাদের ৮০ ভাগই টিকা নেননি। অর্থাৎ করোনার টিকা দেয়ার গতি বাড়ানো খুবই জরুরি বিষয়।

করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে ঘোষণা, নির্দেশনা সত্ত্বেও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার ক্ষেত্রে সবখানেই অনীহা খালি চোখেই দেখা যায়। নির্দেশনা বাস্তবায়নের তোড়জোড়ও নেই বললেই চলে। এমন ঢিলেঢালা অবস্থা আগেও দেখা গিয়েছে এবং তার মূল্যও গুণতে হয়েছে। আবারও তেমন অবস্থা কারও কাছেই গ্রহণযোগ্য হবে না। সময় থাকতেই পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে কার্যকর পদক্ষেপ নিতে হবে। ‘অশুভ ইঙ্গিত’ মোকাবিলায় ভিন্ন কোনো পথ নেই বলে মন্তব্য করেছেন বেশীর ভাগ জনগণ।

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক বাংলার সকাল'কে জানাতে ই-মেইল করুন- banglarsakal24@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

দৈনিক বাংলার সকাল'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

© ২০২৪ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। দৈনিক বাংলার সকাল | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, ডেভোলপ ও ডিজাইন: DONET IT